fbpx

|

আজাদ বাহিনীর শসস্ত্র সন্ত্রাসী তান্ডবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিষ্ক্রিয়

প্রকাশিতঃ ১১:৩০ অপরাহ্ন | মে ১৯, ২০১৮

আজাদ বাহিনীর শসস্ত্র সন্ত্রাসী তান্ডবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিষ্ক্রিয়

স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ

একদিকে ময়মনসিংহ জুড়ে চলছে মাদক ও অপরাধ বিরোধী অভিযান ক্রসফায়ার। সম্প্রতি বন্দুকযুদ্ধে মারা গেছে ১০ জন দুস্কৃতিকারী। কিন্তু এই সময়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নাকের ডগায় উত্থান ঘটেছে শীর্ষ সন্ত্রাসী একাধিক গ্রুপের। যাদের বিরুদ্ধে জনগণ মুখ খুলার সাহস পাচ্ছে না। পুলিশও কিছু করছে না। এ নিয়ে অভিযোগ উঠেছে।

ময়মনসিংহ শহরের ঐতিহ্যবাহী আকুয়া সাম্প্রতিক বছরগুলোতে হয়ে উঠেছে সন্ত্রাসের জনপদ। মাদক, অস্ত্র, চাদাঁবাজি আর রাজনৈতিক ক্যাডার ও উঠতি অপরাধীদের গ্যাং স্পট হয়ে উঠেছে আকুয়া।

এক আজাদ বাহিনীর দৌরাত্মে আকুয়া থেকে শুরু করে পুরো ময়মনসিংহ এখন কাপঁছে। রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় প্রশাসনের উপর প্রভাব বিস্তার করে চলছে এই বাহিনীর বেপরোয়া কর্মকান্ডের বিস্তার। কিন্তু অভিযোগ রয়েছে প্রশাসনকে রহস্যজনভাকে সম্মোহিত করে রেখে অবাধে চালানো হচ্ছে মাদক, সন্ত্রাস, চাদাঁবাজি, অস্ত্রবাজিসহ বেআইনী কর্মকান্ড। পুলিশ,গোয়েন্দা সবাই জানে কিন্তু নিরব। যে জন্য আকুয়া আজাদ বাহিনীর দৌরাত্বে সন্ত্রাসের জনপদ হয়ে উঠলেও আইনপ্রয়োগকারী বাহিনীগুলোর চোখে তা পরেনা। এ নিয়েই জনমনে চলছে ব্যাপক ক্ষোভ, হতাশা ও জল্পনা কল্পনা।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানান, পুলিশের উপস্থিতিতে আকুয়া কলাবাগানে আজাদ বাহিনীর সন্ত্রাসীরা সশস্ত্র মহড়া চালায়। শনিবার ১৯ মে দুপুরে এ সন্ত্রাসী তান্ডবের সময় গোটা এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পরে। এলাকাবাসী এতে বিস্ময় প্রকাশ করে।

সূত্র মতে, গত ২৪ ঘন্টা যাবৎ আকুয়ায় চলছে আজাদ বাহিনীর তান্ডবে পুলিশ নিবর। এ ব্যাপারে আকুয়া দক্ষিণ পাড়া মুসলিম সরকার বাড়ির আব্দুল কাদের ও আকুয়া হাবুন ব্যাপারী মোড়ের শেখ ফারুক শুক্রবার রাতে আজাদ শেখ ও তার দলবলের বিরুদ্ধে কোতোয়ালী থানায় মামলা দায়েরে অভিযোগ দিয়েছেন।

শুক্রবার থেকে শনিবার দুপুর পর্যন্ত আকুয়ায় চলমান অস্ত্রবাজ সন্ত্রাসীদের তান্ডবে গোটা এলাকা রনক্ষেত্রে পরিনত হয়েছে। আজাদ বাহিনীর অস্ত্রের মহড়ায় এলাকাবাসী শঙ্কিত হয়ে পড়ে। থেকে থেকে গুলির শব্দ হয়েছে বলে স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে।
শুক্রবার বিকাল ৪টায় আকুয়া দক্ষিন পাড়ার ৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ অফিসে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে সন্ত্রাসীরা। আজদ শেখ নিজে উপস্থিত থেকে এ হামলার নেতৃত্ব দেন বলে জানান ৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, হামলার সময় সন্ত্রাসীরা দলীয় অস্থায়ী কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি দেয়াল থেকে ফেলে কুপিয়ে ভাংচুর করে। এ সময় একটি ওয়ালট্রন মোটরসাইকেল নিয়ে যায়। অন্যদিকে আকুয়া হাবুন বেপারী মোড়ে শুক্রবার বিকালেই পৃথক ঘটনায় শেখ ফারুকের বাড়িঘরে হামলা ভাংচুর ও লুটপাট করে একই সন্ত্রাসীরা। এ সময় শেখ ফারুকের মা ফরিদা খাতুন (৫০) কে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে সন্ত্রাসীরা।

শুধু শুক্র ও শনিবারের সর্বশেষ এ তান্ডব এর ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে নিষ্ক্রয়তার অভিযোগ জনমনে ঘুরপাক খাচ্ছেনা বরং তারা আকুয়ায় পুলিশ সন্ত্রাসীর পাশে দেখে হতাশ। গ্রেফতার হয়নি কেউই।

ময়মনসিংহ সদরের আকুয়ায় সন্ত্রাসীদের আস্থানা গড়ে উঠার পেছনে রয়েছে দীর্ঘদিন ধরে চলমান রাজনৈতিক  গ্রুপিং এর পাশ্বপতিক্রিয়া। এক শ্রেনীর অপরাধিরা পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে মাদক চাদাঁবাজিসহ অপরাধের ক্রাইম জোনে পরিনত করেছে।

বিশেজ্ঞ মহলের মতে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার মাদক সন্ত্রাস এর বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি বাস্তবায়নে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে হার্ড লাইনে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। সে লক্ষ্যে জেলা পুলিশ অভিযান চালালে একাধিক চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলার আসামি, ছিনতাইকারী, মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার ও গ্রেফতার চেষ্টায় বন্দুকযুদ্ধে মারা গেছে ১০ জন।

পুলিশের এমন সাড়াশী ও কঠোর পদক্ষেপে যখন জেলা ব্যাপী সন্ত্রাসী ও মাদকবাজরা তটষ্ট। ঠিক তখনি নগরীর আকুয়ায় প্রভাবশালী মহলের ছত্রছায়ায় কথিত আজাদ বাহিনী নামে সশস্ত্র সন্ত্রাসী বাহিনী গড়ে উঠেছে বলে অভিযোগ। এই বাহিনী আধিপত্য বিস্তার করতে গুলি ও দেশীয় অস্ত্র দিয়ে তান্ডব চালিয়ে ওই এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করছে। তারা প্রতিনিয়ত অবৈধ অস্ত্রের ঝনঝনানিতে নিজেদের ভয়ংকর অবস্থান জানান দিতে চালাচ্ছে গুলি।

অন্যদিকে হামলা চালিয়ে বাড়িঘর ভাংচুর, কুপিয়ে রক্তাক্ত করা হচ্ছে নিরিহ জনগণকে। কেউ এই বাহিনীর ভয়ে মুখ খুলে না। মামলা দিতে চাইলে বাড়িঘরে উঠে অস্ত্র ঠেকিয়ে স্বজনদের হত্যা, গুম করে ফেলার হুমকি দেয়া হচ্ছে এমন অভিযোগও করেছে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভুক্তভোগী সূত্র।

জানা যায়, কথিত আজাদ বাহিনীর অত্যাচারে এলাকায় সাধারণ মানুষ অতিষ্ট আতংকিত। যা এলাকায় ওপেন সিক্রেট নয় ওপেন। একের পর এক সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করে প্রতিদিন নিজ বাহিনীর অবস্থান জানান দিতে প্রতিপক্ষ কাউকে না কাউকে কুপিয়ে আহত করার ঘটনা ঘটাচ্ছে বলে সূত্র জানায়। এ বাহিনীর প্রধান আজাদ শেখ । তিনি সম্প্রতি একটি রাজনৈতিক গ্রুপ বলয়ে যোগদান কারার পর থেকেই সশস্ত্র মহড়া আর সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে অশান্ত করে রেখেছে আকুয়াকে। বর্তমান গ্রুপে যোগ দিয়েই ওই এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করতে তৎপর হয়ে উঠেছে এ বাহিনী।

আজাদ বাহিনীর ক্যাডারদের বিরুদ্ধে মাদক, মারামারি, চাদাঁবাজি, অস্ত্র, হত্যা, মোটরসাইকেল চুরি, ছিনতাইসহ একাধিক মামলা ও ব্যাপক অভিযোগ রয়েছে বলে সূত্র জানায়। অভিযোগ সত্তেও পুলিশ কেন এ ব্যাপারে নিরব রয়েছে তা নিয়ে সচেতন মহলে প্রশ্ন উঠেছে।

দেখা হয়েছে: 1188
সর্বাধিক পঠিত
ফেইসবুকে আমরা

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

প্রকাশকঃ মোঃ জাহিদ হাসান
সম্পাদকঃ আরিফ আহম্মেদ
সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী
নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া
মোবাইলঃ ০১৯৭১-৭৬৪৪৯৭
বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
ই-মেইলঃ [email protected]
অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
error: Content is protected !!