|

আদালতের নির্দেশ অমান্য, লক্ষ্মীপুরে চলছে বহুতল ভবন নির্মাণ কাজ

প্রকাশিতঃ ২:৪১ অপরাহ্ন | এপ্রিল ০১, ২০১৯

আদালতের নির্দেশ অমান্য, লক্ষ্মীপুরে চলছে বহুতল ভবন নির্মাণ কাজ

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধিঃ লক্ষ্মীপুরে উচ্চ আদালতের নির্দেশ অমান্য করে ৩২ শতাংশ জমিতে ‘পার্ক টাওয়ার’ নামে একটি বহুতল ভবনের নির্মাণ কাজ করার অভিযোগ উঠেছে। এরমধ্যে ৬ শতাংশ জমির মালিকানা দাবি করছে লক্ষ্মীপুর ট্রাক মালিক সমবায় সমিতি।

এনিয়ে অভিযোগ করা হলে ভবন নির্মাণে নিষেধাজ্ঞা জারি করে উচ্চ আদালত। কিন্তু রবিবার (৩১ মার্চ) সকাল ১০ টার দিকে জেলা শহরের উত্তর তেমুহনী এলাকায় গিয়ে শ্রমিকদের ওই ভবনের কাজ করতে দেখা গেছে।

এদিকে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ভবনের নির্মাণ কাজ করায় আদালত অবমাননা হচ্ছে- জানিয়ে কাজ বন্ধ করতে ২৩ মার্চ লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছে আইনী নোটিশ পাঠিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার মোহাম্মদ ইসমাইল হোসেন। এতে বলা হয়, নির্মাণ কাজ বন্ধ না হলে আইন লঙ্গন ও বিবাদের আশঙ্কা রয়েছে।

অন্যদিকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ট্রাক মালিক সমবায় সমিতি সহ-সভাপতি সুজায়েত উল্যা ২৪ মার্চ চট্টগ্রাম বিভাগীয় পুলিশের উপ-মহাপরিদর্শকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন।



আদালতের নির্দেশ অমান্য, লক্ষ্মীপুরে চলছে বহুতল ভবন নির্মাণ কাজ

 

ট্রাক মালিক সমিতির নেতারা জানায়, লক্ষ্মীপুর পৌরসভার উত্তর তেমুহনী এলাকায় বাঞ্চানগর মৌজায় নির্মাণাধীন বহুতল ভবনের ৩২ এর মধ্যে তাদের ৬ শতাংশ রয়েছে।এ জমিটির চৌহদ্দি নির্মাণাধীন পার্ক টাওয়ারের দক্ষিণ পাশে (ঢাকা-রায়পুর আঞ্চলিক সড়কের পাশে)।

কিন্তু ২০১২ সালে ওই জমিতে জোরপূর্বক স্থানীয় প্রভাবশালী নুর নবী মিয়া বহুতল ভবন নির্মাণ কাজ শুরু করে। পরে ট্রাকচালক সমিতির পক্ষে উচ্চ আদালতে অভিযোগ দায়ের করলে সমাধান না হওয়া পর্যন্ত নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখার আদেশ দেন। এরপর নির্মাণ কাজ দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল। সম্প্রতি ফের নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়েছে।

লক্ষ্মীপুর ট্রাক মালিক সমিতির সহ-সভাপতি সুজায়েত উল্যা বলেন, আমাদের ৬ শতাংশ জমি ঢাকা-রায়পুর মহাড়কের পাশে। আমাদের সব কাগজপত্র আছে। কিন্তু আদালতের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও নুরনবী তার লোকজন দিয়ে জোরপূর্বক নির্মাণ কাজ চালাচ্ছে। বিষয়টি পুলিশ কর্মকর্তাদের জানিয়েছে।



জানতে চাইলে নুর নবী মিয়া বলেন, আমি ট্রাক মালিক সমিতির থেকে ৬ শতাংশ জমি ১২ লাখ টাকা দিয়ে কিনেছি। সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান অন্যদের স্বাক্ষর নিয়ে জমিটি আমার নামে লিখে দেন। কিন্তু তখনও জমিটি তাদের দখলে ছিল না। আমি ওই জমিটি চিহ্নিত করতে পারিনি। আর নির্মাণাধীন ভবনের জমিতে তাদের কোন জমি নেই।

লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক ও তদন্ত কর্মকর্তা নেছার আহম্মদ বলেন, ট্রাক-মালিক সমিতি তাদের জমি চিহ্নিত করতে পারেননি। নুরনবীরা আদালত থেকে স্থগিতাদেশ বাতিল করে এনেছেন বলে শুনেছি। নির্মাণাধীন ভবনে সমিতির পক্ষ থেকে যদি জমি চিহ্নিত করে দিতে পারে, তাহলে কাজ বন্ধ করে দেওয়া হবে।

আদালতের নির্দেশ অমান্য, লক্ষ্মীপুরে চলছে বহুতল ভবন নির্মাণ কাজ

দেখা হয়েছে: 188
সর্বাধিক পঠিত
ফেইসবুকে আমরা

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন
অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।
সম্পাদকঃ আরিফ আহমেদ
প্রকাশকঃ উবায়দুল্লাহ রুমি
সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী
নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া
বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
সহকারী সম্পাদকঃ মোবাইল ০১৯১৬-৯১৭৫৬৪
নির্বাহী সম্পাদকঃ মোবাইল ০১৭১৮-৯৭১৩৬০
ই-মেইলঃ aporadhbartamofosal@gmail.com
অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
error: Content is protected !!