|

এল‌জিই‌ডির প্রকৌশলীর অপসারণের দাবী‌তে সাংবাদিকদের মানববন্ধন

প্রকাশিতঃ ১০:১৪ অপরাহ্ন | মার্চ ২৫, ২০২৪

এল‌জিই‌ডির প্রকৌশলীর অপসারণের দাবী‌তে সাংবাদিকদের মানববন্ধন

মোঃ মহসিন রেজা রিপন, শরীয়তপুর প্রতিনিধি: শরীয়তপু‌রের ডামুড‌্যায় এল‌জিই‌ডির রাস্তার কাজের অনিয়মের তথ্য সংগ্রহ করতে গিয়ে প্রকৌশলী কর্তৃক সাংবা‌দিক হেনস্তার ঘটনায় মানববন্ধন ক‌রে‌ছে গণমাধ্যমকর্মীরা। সোমবার (২৪ মার্চ) বেলা ১১ টায় শরীয়তপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে ঘন্টাব‌্যা‌পি এ মানববন্ধন ও বি‌ক্ষোভ কর্মসূ‌চি পালন ক‌রেন জেলায় কর্মরত বি‌ভিন্ন সাংবা‌দিকরা। এ‌তে অংশগ্রহন ক‌রে শরীয়তপুর প্রেসক্লাবসহ অন্যান্য সাংবাদিক সংগঠন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, গত বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) গণমাধ্যম কর্মীরা জানতে পারে ডামুড্যা উপজেলার খেজুরতলা নামক স্থানে রাস্তার কার্পেটিং কাজ চলমান রয়েছে। নতুন এই রাস্তাটির কার্পেটিংয়ের বিটুমিনের সঙ্গে পুরোনো রাস্তা ও পুরোনো সেতু থেকে তুলে আনা পুরোনো পাথর মেশানো হচ্ছে। এমন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত হতে ঘটনাস্থলে যায় দৈনিক সমকালের প্রতিনিধি সোহাগ খান সুজন, দ্য ডেইলি স্টারের প্রতিনিধি জাহিদ হাসান রনি, বাংলা টিভি ও সম‌য়ের কন্ঠস্ব‌রের প্রতিনিধি নয়ন দাসসহ কয়েকজন সাংবাদিক।

এসময় তারা দেখতে পায়, নতুন রাস্তার কার্পেটিংয়ের বিটুমিনে মেশানোর জন্য ঘটনাস্থলে রাস্তা থেকে তুলে আনা পুরানো কার্পেটিংয়ের পাথর ও পুরোনো সেতু ভাঙ্গার পুরানো পাথর রাখা আছে। বিষয়টি ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকা ডামুড্যা উপজেলা এলজিইডির প্রকৌশলী আবু নাইম নাবিলের কাছে জানতে চাইলে উত্তেজিত হয়ে যান তিনি।

এসময় তিনি বলেন, কাজের কি বোঝোস? তোরা কারা? তোদের পরাশোনার যোগ্যতা কি? গেট লস্ট। এখান থেকে বের হয়ে যা, এখনই বের হ। এরপর তিনি সোহাগ খান সুজন, জাহিদ হাসান রনিকে ধাক্কা মেরে লাঞ্চিত করেন।

এসময় তিনি আরও বলেন, আমার মন্ত্রী সচিব আছেন, জেলা এক্সেন (জেলা নির্বাহী প্রকৌশলী) আমি গুনি না। তোদের পরিচয় বল, আমার শশুর বাড়ির আত্মীয় টিভি চ্যানেলের চিফ রিপোর্টার। এভাবেই তিনি সাংবাদিকদের শায়েস্তা করার হুমকি দেন। বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমেও সংবাদ প্রকাশ হয়। এর পরেও আবু নাইম নাবিল ভুক্তভোগী সাংবাদিকদের বিভিন্নভাবে জীবন নাশের হুমকি প্রদান প্রদান করেছেন।

এঘটনায় বোরবার ডামুড‌্যা থানায় একটা সাধারন ডাইরী ক‌রেন ভুক্তভুগী সাংবা‌দিকরা। য‌দিও একজন কর্মকর্তার এমন আচরণে ক্ষোভ প্রকাশ ক‌রে‌ছে জেলায় কর্মরত সাংবা‌দিকরা। তাই প্রকৌশলী আবু নাইম নাবিলকে অপসারণ করে বিভাগীয় শাস্তি নিশ্চিত করার দাবী সাংবা‌দিক নেতা‌দের।

মানববন্ধনে সময় টিভির প্রতিনিধি বি এম ইস্রাফিল বলেন, ডামুড্যাতে চাঞ্চল্যকর এই ঘটনায় বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ ও থানায় জিডি হওয়ার পর ও উপজেলা প্রকৌশলী নাবিলকে জেলা এলজিইডি অফিস ও তার উর্ধতন কর্মকর্তারা সামন্যতম শোকজ করা হয়নি। তাকে যদি শোকজ করা না হয়, তার বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেওয়া না হয় এমন কর্মকান্ড সে কিন্তু করেই যাবে।

যার আচরণ সাধারণ মানুষের মত নয়, একজন প্রথম শ্রেণির কর্মকর্তা হয়েও যার আচরণ অফিসারের মতন নয়, যার আচরণ মাস্তানীর মতন সেই ধরনের মানুষ কি ভাবে চাকরি করতে আসে।তার বিরুদ্ধে যে কঠোর ব্যাবস্থা নেওয়া হোক। দ্রুত তাকে এই জেলা থেকে অনত্র সরিয়ে নেওয়া হোক বা তাকে চাকরিচুত্য করা হোক।

মানববন্ধনে প্রথম আলোর শরীয়তপুর প্রতিনিধি সত্যজিৎ ঘোষ বলেন, গণমাধ্যম কর্মীরা জনগণ, পাঠক, দর্শকের কাছে সত্য প্রচারে দায়বদ্ধ। পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে প্রকৌশলী আবু নাইম নাবিল গণমাধ্যম কর্মীদের হেনস্থা করেছেন। আমি এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলতে চাই, এলজিইডির জেলা ও জাতীয় পর্যায়ে যারা আছেন, তারা যেন দ্রুত আবু নাইম নাবিলকে অপসারণ করে বিভাগীয় শাস্তি নিশ্চিত করেন।

মানববন্ধন শেষে গণমাধ্যম কর্মীরা তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর কাছে শরীয়তপুর জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্মারকলিপি প্রদান করেন।

মানববন্ধনে শরীয়তপুর প্রেসক্লাব, প্রিন্ট ও অনলাইন জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন, শরীয়তপুর অনলাইন জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন, মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের (বিএমএসএফ) নেতৃবৃন্দসহ আরও উপস্থিত ছিলেন, দৈনিক যুগান্তরের প্রতিনিধি রায়হান কবীর সোহেল, বিটিভির প্রতিনিধি মফিজুর রহমান রিপন, সময় টিভির জেলা প্রতিনিধি বি এম ইাস্রাফিল,মোহনা টিভির প্রতিনিধি মাহবুবুর রহমান, এখন টেলিভিশনের প্রতিনিধি কাজীমনিরুজ্জামান, মাছরাঙা টেলিভিশনের প্রতিনিধি কবির উজ্জামান, বৈশাখী টিভির প্রতিনিধি খালেক পেদা ইমন, দৈনিক এশিয়া বানীর মোঃ মহ‌সিন রেজা রিপন, মাই টিভির প্রতিনিধি সজিব সিকদার, ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের প্রতিনিধি সগির হোসন, ডিবিসি নিউজের রাজিব হোসেন রাজন, যমুনা টিভির এস এম সাকিল, সময়ের আলোর প্রতিনিধি এস এম শফিকুল ইসলাম স্বপন সরকার, ভোরের পাতার জামাল মল্লিক, চ্যানেল এস টিভির খোরশেদ আলম বাবুল, এশিয়ান টেলিভিশনের ফারুক আহমেদ মোল্লা, আজকের প্রত্রিকার বেলাল হোসাইন, কালবেলার মিরাজ শিকদার, কালের কন্ঠের প্রতিনিধি শরিফুল আলম ইমন, মাহবুবুর রহমান, গণকন্ঠের রেদোয়ান বিন কবির, নাগরিক টিবির শাহাদাত হোসেন হিরু, দৈনিক আমার সময়ের প্রতিনিধি ফারুক আহমেদ, যুগান্তরের ভেদরগঞ্জ প্রতিনিধি শাকিল আহমেদ, ঢাকা পোস্টের প্রতিনিধি সাইফ রুদাদ, ইত্তেফাকের প্রতিনিধি শাহিন আলম, যায়যায়দিনের প্রতিনিধি ইমরান হোসাইন রাব্বি, দৈনিক সমাচারের সাইফুল ইসলাম, জাগো নিউজের বিধান মজুমদার, গ্লোবাল টিবির সাইফুল ইসলাম আকাশ, সংবাদ প্রকাশের নয়ন সহ অন্যন্যরা।

দেখা হয়েছে: 139
সর্বাধিক পঠিত
ফেইসবুকে আমরা

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

প্রকাশকঃ মোঃ উবায়দুল্লাহ
সম্পাদকঃ আরিফ আহম্মেদ
সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী
নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া
মোবাইলঃ ০১৯৭১-৭৬৪৪৯৭
বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
ই-মেইলঃ [email protected]
অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪