fbpx

|

তানোরে ওএমএসের চাউল পাচার আটক ২৫ হাজার টাকায় ছাড়

প্রকাশিতঃ ৫:০২ অপরাহ্ন | সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২২

তানোরে ওএমএসের চাউল পাচার আটক ২৫ হাজার টাকায় ছাড়

তানোর প্রতিনিধি: রাজশাহীর তানোরে ওএমএসএর চাউল পাচারের সময় আটক করার ঘটনা ঘটেছে। জেলার নওহাটা এলাকায় স্থানীয় ক্ষমতাসীন দলের নেতা ও সাংবাদিকরা এসব চাউল আটক করেন। গত শুক্রবার সকালের দিকে নওহাটা এলাকায় ঘটে আটকের ঘটনাটি।

আটকের পর পাচারকারী সাবেক লেবার সরদার ইমরান হোসেন ভুট্রু ও পৌর যুবলীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুল ওহাব সরদার ও গার্ড ডলারের চাউল বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। আটকের পর তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে ২৫ হাজার টাকায় দিয়ে চাউল উদ্ধার করে পুনরাায় পাচার করেন।

এখবর ছড়িয়ে পড়লে পাচারের সাথে জড়িতদের আইনের আওতায় এনে চরম শাস্তির দাবি তুলেছেন গরীব অসহায় জনসাধারন। ফলে চাউল পাচার কোনভাবে থামছেনা, আর থামবেও বলে মনে হয় না, কারন গুদামের লোকজনরাই বড় সিন্ডিকেট।

যুবলীগ নেতা ওহাব সরদারের কাছে বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি জানান, রাঘব বোয়ালদের রেখে আমাদের ধরে লাভ কি। চাউল গুলো আপনাদের জানতে চাইলে তিনি জানান, সবকিছু ইমরান হোসেন ভুট্রু বলতে পারবেন।

বহিস্কৃত লেবার সরদার ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা ইমরান হোসেন ভুট্রু জানান, হ্যাঁ আমাদের চাউল ছিল, আটকের পর আমাদের ২৫ হাজার টাকা দেওয়া লেগেছে। কাদেরকে জরিমান দেওয়া হল জানতে চাইলে তিনি জানান, যা বাশ যাওয়ার গেছে আর নাম বলছি না।

জানা গেছে, চলতি মাসের ১৬ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সকালের দিকে মোটা চাকার চার্জার ভ্যানে করে ১২০ বস্তা ওএমএসএস চাউল পাচার করা হচ্ছে শহর মুখে। পথে মধ্যে নওহাটায় পৌছামাত্র স্থানীয় নেতা ও সাংবাদিকরা আটক করেন। আটক করে তারা প্রশাসনকে না জানিয়ে পাচার কারীদের ডেকে নেন। তারা গেলে ২৫ হাজার টাকায় রফা করে ছেড়ে দেন।

গোল্লাপাড়া গুদাম কর্মকর্তা ওসিএলএসডি ওহেদুজ্জামান জানান, গড সপ্তাহে দুই পৌর এলাকার ছয়জন ডিলার বিভিন্ন দোকানে ওএমএসএর চাউল বিক্রি করেন। আপনি বিক্রির কথা বলছেন তাহলে ডিলারের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে কিনা প্রশ্ন করা হলে উত্তরে তিনি জানান, তারা প্রভাবশালী কিছু বলা যায় না। আপনার দপ্তরের গার্ড ডলার জড়িত জানতে চাইলে তিনি খতিয়ে দেখবেন বলে আশ্বাস দেন।

এক ব্যবসায়ী জানান, একজব সাবেক লেবার সরদারের দাম্ভিকতা দেখলে মনে হয় তিনিই কর্মকর্তা। ওসিএলএসডি ছাড়া এত বড় সিন্ডিকেট বা পাচার করা সম্ভব না। কারন গেটে কার নির্দেশে সিন্ডিকেট চলে এটা বুঝতে হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পংকজ চন্দ দেবনাথ জানান, বর্তমান প্রেক্ষাপটে গরীব অসহায় দিন মজি্ুর জনসাধারনের কথা বিবেচনা করে বিশাল ভুর্তুকির মাধ্যমে সরকার চাউল দিচ্ছেন আর সে চাউল নিয়ে কেউ ছিনিমিনি করলে কোন ছাড় দেওয়া হবে না। ডিলারেরা বিক্রয় না করা হলে কঠোর ব্যবস্থা করা হবে।।

দেখা হয়েছে: 35
সর্বাধিক পঠিত
ফেইসবুকে আমরা

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

প্রকাশকঃ মোঃ জাহিদ হাসান
সম্পাদকঃ আরিফ আহম্মেদ
সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী
নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া
মোবাইলঃ ০১৯৭১-৭৬৪৪৯৭
বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
ই-মেইলঃ [email protected]
অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
error: Content is protected !!