|

করোনা আপডেট
মোট আক্রান্ত

সুস্থ

মৃত্যু

  • জেলা সমূহের তথ্য
ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর | স্পন্সর - একতা হোস্ট
বাগমারায় হটাৎ বেড়েছে সর্দি জ্বরের প্রকোপ

প্রকাশিতঃ ৯:২২ অপরাহ্ন | সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২০

নাজিম হাসান,রাজশাহী প্রতিনিধি:
বাগমারার ঘরে ঘরে দেখা দিয়েছে সর্দি জ্বর ও কাশিতে আক্রান্তের রোগি। দুই মাসের শিশু থেকে শুরু করে বৃদ্ধরাও এই রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। সহজে মিলছে না এর সমাধান। রোগিরা ঘুরছেন গ্রাম্য ডাক্তারের কাছে বা আশেপাশেরর কমিউনিটি ক্লিনিক ও উপজেলা সদর হাসপাতালে। ডাক্তাররা লিখে দিচ্ছেন সাধারন মানের ওষধ। তাতেও মিলছে না সমাধান। অনেক এসব লক্ষনকে করোনা সন্দেহ করে আরো কাহিল হয়ে পড়ছেন। গতকাল বুধবার সরেজমিন উপজেলার কয়েকটি কমিউনিটি ক্লিনিক ও ভবানীগঞ্জ সাব সেন্টার ঘুরে এমন রোগিদের দেখা যায়। শিশু থেকে শুরু করে বিভিন্ন বয়সের নারী পুরুষরা এভাবে সর্দি জ্বর ও কাশিতে আক্রান্ত হয়ে ছুটে এসেছেন ডাক্তারের কাছে। তবে ডাক্তার এসব রোগিদের সর্দি জ্বরের সাধারন ওষধ দিচ্ছেন। অনেকে এমন সর্দি জ্বর ও কাশিকে করোনার উপসর্গ সন্দেহ করে মানসিক ভাবে কাহিল হয়ে পড়ছেন। ভবানীগঞ্জ পৌরসভার সর্যপাড়া মহল্লার কল্পনা খাতুন তার ছেলের স্ত্রী সুইটি খাতুন ও এক বৎসরের কন্যা সন্তান হাবিবাকে নিয়ে ভবানীগঞ্জ সাব সেন্টারে এসেছেন সর্দি জ্বর ও কাশির সমস্যা নিয়ে। কল্পনা খাতুন জানান, তার ছেলে কামাল হোসেন তার স্ত্রী কন্যা সহ তিন জনই সর্দি জ্বর ও কাশিতে আক্রান্ত হয়েছেন। কোন কিছুতেই এই সর্দি জ্বর ভালো হচ্ছে না। তারা বুঝতে পারছেন না তাদের করোনা হয়েছে কিনা। একই সদস্যা নিয়ে ভবানীগঞ্জ হেদায়েতী পাড়া মহল্লার জান্নাতুন নেছা এসেছেন তার সদ্যজাত সন্তানকে নিয়ে সর্দি জ্বর ও কাশির সমস্যা নিয়ে। এসব রোগিদের চিকিৎসা দিতে হিমহিম খাচ্ছেন ভবানীগঞ্জ সাব সেন্টারের স্বাস্থ উপ সহকারি ডা: সাথী খাতুন। তিনি জানান, প্রতিদিন গড়ে একশ থেকে দেড়শ রোগি এখানে চিকিৎিসা নিয়ে থাকেন। এখন রোগিদের অধিকাংশই সর্দি জ্বর ও কাাশির সদস্যা নিয়ে আসছেন। তিনি সাধ্যমত চেষ্টা করছেন এসব রোগিদের যথাযত চিকিৎসা সেবা দিতে। একই দিন উপজেলার দর্গামাড়িয়া গ্রামের কমিউনিটি ক্লিনিকে গিয়ে একই চিত্র লক্ষ করা যায়। এখানেও প্রতিদিন গড়ে ষাট থেকে সত্তর জন রোগি চিকিৎসা সেবা নিয়ে থাকেন। এই ক্লিনিকের কমিউনিটি হেল্থ প্রোভাইডার সাজাতা কুন্ডু জানান, এখকার রোগিদের অধিকাংশই সর্দি জ্বর ও কাশির সদস্যা নিয়ে আসছেন। উপজেলার শিকদারী বাজারের পল্লী চিকিৎসক ডা: টিপু জানান, প্রতিদিন গড়ে ৫০/৬০ জন রোগি তার কাছে আসছেন সর্দি জ্বর ও কাশির সদস্যা নিয়ে। এই রোগিদের অনেকে এমন উপসর্গকে করোনা সন্দেহ করে মানসিক ভাবে কাহিল হয়ে পড়ছেন বলেও তিনি জানান। তবে তিনি রোগিদের সাধ্যমত আশ্বস্থ করার চেষ্টা করছেন সর্দি জ্বর হলেই করোনা হয় না।এতে ঘাবড়ানোর কিছু নেই। এসব বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিরকল্পনা কর্মকর্তা ডা: গোলাম রাব্বানী বলেন, এখন সিজিন চেঞ্জ হচ্ছে। এ সময় এমন সর্দি জ্বর ও কাশি হতে পারে। এতে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। করোনা উপসর্গ হলে তার পরীক্ষার জন্য আমাদের ব্যবস্থা রয়েছে। সবকিছু মিলে এটা আবহাওয়া পরিবর্তন জনিত সর্দি জ্বর। এসবের সহজ চিকিৎসা আমাদের সকল কমিউনিটি ক্লিনিক সহ সাব সেন্টার ও বাগমারা মেডিকেলে রয়েছে। রোগিরা আসলে তাদের চিকিৎসা ও প্রযোজনীয় ওষধ দেয়ার ব্যবস্থা রয়ে ছে বলে তিনি জানান।#

দেখা হয়েছে: 58
সর্বাধিক পঠিত
ফেইসবুকে আমরা

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।
সম্পাদকঃ আরিফ আহমেদ
উপদেষ্টা সম্পাদকঃ আফজাল হোসেন হিমেল
সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী
নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া
বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
ই-মেইলঃ aporadhbartamofosal@gmail.com
অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪