fbpx

|

রংপুরে পুরাতন কাপড়ের চাহিদা বেড়েছে

প্রকাশিতঃ ৮:৩৮ অপরাহ্ন | ফেব্রুয়ারী ০১, ২০২২

রংপুরে পুরাতন কাপড়ের চাহিদা বেড়েছে

রবিন চৌধুরী রাসেল, রংপুর জেলা প্রতিনিধিঃ রংপুরসহ সারাদেশে শীতে পুরাতন কাপড়ের চাহিদা বেড়ে গেছে। বাংলাদেশ স্বল্প আয়ের দেশ হওয়ায় একটা নতুন শীতবস্ত্র কিনতে ব্যায় করতে হয় হাজার হাজার টাকা।

আয় বুঝে ব্যায় করতে মানুষ শীতকালীন স্বল্প মূল্যে শীতবস্ত্র কেনার জন্য পুরাতন কাপড়ের দিকে ঝুঁকে পড়ে, নতুন কাপড় কিনতে যেখানে হাজারের উপরে টাকা ব্যায় করতে হয়, সেখানে ৩/৪ শত টাকায় একই কাপড় ক্রয় করে পুরাতন কাপড়ের বিক্রেতার কাছ হতে।

বাংলাদেশে অবস্হিত বিভিন্ন ক্যাম্প, দোকানছাড়াও রিক্সা-ভ্যানে করে পুরাতন কাপড় ক্রয়-বিক্রয় করতে দেখা যাচ্ছে। পুরাতন কাপড়ের চাহিদা বাড়লেও বাড়েনি আমদানি। লাইসেন্স সাপেক্ষে বিভিন্ন দেশ হতে আসছে এই পুরাতন কাপড়গুলো। দেখা যায়, বিগতদিনে এরশাদের আমলে ৬০০০ লাইসেন্স করা হয় যারা একলক্ষ টাকার পুরাতন কাপড় আমদানি করতে পারবে, যা বর্তমানে সাড়ে তিন হাজার লাইসেন্সে ৫০,০০০/- টাকায় আমদানি করছে। চাহিদা বেড়েছে কিন্তু আমদানি কমায় শঙ্কা প্রকাশ করছে ক্রেতা-বিক্রেতাসহ সকলে।

এ ব্যপারে কথা হয় অটো চালক সিরাজুলের সাথে তিনি বলেন, নতুন কাপড় একটা কিনতে যে টাকা খরচ হয়, পুরাতন কাপড় ঐ টাকা দিয়ে পুরো পরিবারের শীতবস্ত্র কেনা যায়। আমরা অল্প আয়ের মানুষ, দিন আনি দিন খাই, আমরা নতুন কাপড় কিনবো কি করে। তাই প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রার্থনা চাহিদা অনুযায়ী পুরাতন কাপড় আমদানি করা হোক। তিনি ছাড়াও ক্রেতা কয়েকজন স্কুল শিক্ষিকাসহ একই কথা বলেন।

এ ব্যপারে কয়েকজন পুরাতন কাপড় ব্যবসায়ী বলেন, আমাদের মতো গরীব দেশে শীত এলেই মানুষ পুরাতন কাপড়ের দিকে এগিয়ে যায়। আয় অনুযায়ী ব্যয় করাই তাদের লক্ষ। কিন্তু চাহিদা অনুযায়ী আমরা কাপড় দিতে পারি না। আমদানি কম হওয়ায় আমরা বিপাকে পড়েছি। তাই সরকার প্রধানসহ সংশ্লিষ্ট মহলের দৃষ্টি কামনা করছি। যাতে অল্প আয়ের লোকেরা বস্ত্র পড়ে, দুমুঠো খাবার খেয়ে বাঁচতে পারে।

কথা হলো চেম্বার অফ কমার্সের পরিচালক ও মেসার্স সাবিহুল হক এর স্বত্বাধিকারী সাবিহুল হকের সাথে তিনি জানান, আমাদের যেখানে এরশাদের আমলে লাইসেন্স প্রতি একলক্ষ টাকার অনুমোদন ছিল তা কমিয়ে এখন পঞ্চাশ হাজার করা হয়েছে। পাশাপশি ছয় হাজার লাইসেন্স কমিয়ে এখন সাড়ে তিন হাজার করা হয়েছে।

যার কারণে আমরা আমদানি করতে পারছি না, চাহিদাও পুরন হচ্ছে না। আগের তুলনা এখন পুরাতন কাপড়ের চাহিদা তিনগুণ বেড়েছে অপরদিকে আমদানি কমেছে। তাই প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাসহ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের পুরাতন কাপড় আমদানি ক্ষাতে নজর দেয়ার জন্য অনুরোধ করছি। যাতে অল্প আয়ের মানুষগুলো খেয়ে পড়ে বেঁচে থাকতে পারে।

দেখা হয়েছে: 106
সর্বাধিক পঠিত
ফেইসবুকে আমরা

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

সম্পাদকঃ আরিফ আহম্মেদ
সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী
নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া
মোবাইলঃ ০১৯৭১-৭৬৪৪৯৭
বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
ই-মেইলঃ [email protected]
অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
error: Content is protected !!