fbpx

|

রাজশাহীতে পদ্মায় ডুবে শিক্ষার্থীর মৃত্যু,লাশ নিয়ে পুলিশের টানাটানি

প্রকাশিতঃ ১:১২ পূর্বাহ্ন | মে ২০, ২০১৯

রাজশাহীতে পদ্মায় ডুবে শিক্ষার্থীর মৃত্যু,লাশ নিয়ে পুলিশের টানাটানি

নাজিম হাসান, রাজশাহী প্রতিনিধিঃ রাজশাহী মহানগরীর পদ্মা নদীতে পানিতে ডুবে সাজিদ (১৬) নামের এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। রোববার পাঠানপাড়া মুক্তমঞ্চের সামনে পদ্মানদীতে গোসল করতে গিয়ে সে ডুবে যায়।

নিহত সাজিদ পুঠিয়া ধোপাপাড়া এলাকার কায়েস উদ্দিন সাগরের পুত্র। সাজিদ এবার এস.এস.সি পরীক্ষায় পাশ করেছে। এবং এইচএসসিতে ভর্তি হওয়ার জন্য নগরীর মালোপাড়া এলাকায় একটি বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতো।

জানা গেছে, রোববার দুপুরে সে কয়েকজন বন্ধুর সঙ্গে পদ্মা নদীতে গোসল করতে যায়। কিন্তু সে সাঁতার না জানায় গোসলের এক পর্যায়ে গভীর পানিতে তলিয়ে যায়। তাকে অনেক খোঁজাখুজি করে না পেয়ে তার বন্ধুরা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স রাজশাহী সদর দফতরে খবর দেন।

পরে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স রাজশাহী সদর দফতরের ডুবুরী নুরুন্নবীর নেতৃত্বে স্থানীয় জেলেদের সহযোগীতায় ডুবুরী রিপন ও জুয়েল সাজিদকে উদ্ধার করে। পরে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৩২ নম্বর ওয়ার্ডে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

এদিকে,শিক্ষার্থী সাজিদ হোসেন মারা যাওয়ার পরে লাশ নিয়ে রশি টানাটানি শুরু করেছে পুলিশ। রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল থেকে শিক্ষার্থী সাজিদের মৃত্যু নিয়ে পুলিশের অনাপত্তিপত্র চাওয়ার পরেই এ টানাহেঁচড়া শুরু হয়।

নিহত শিক্ষার্থী সাজিদের মামাতো ভাই ফিরোজ আহমেদ জানান, সাজিদ মৃত্যুর ঘটনায় পরিবারকে মেডিক্যাল কর্তৃপক্ষ পুলিশের অনাপত্তিপত্র নিতে বলায় প্রথেমে তারা নগরীর বোয়ালিয়ায় থানায় যান। কিন্তু বোয়ালিয়া থানা পুলিশ ক্লিয়ারেন্সের জন্য কাটাখালি থানায় পাঠায়।

কাটাখালি থানা পুলিশ জানায়, তাদের সীমানায় নয় ঘটনা। কাজেই তাদের মতিহার থানায় যেতে বলা হয়। এরপর মতিহার থানায় যান সাজিদের স্বজনরা। কিন্তু মতিহার থানা পুলিশ জানায়, ঘটনাটি বোয়ালিয়া থানা এলাকায় ঘটেছে। কাজেই ক্লিয়ারেন্স দিলে বোয়ালিয়া থানা পুলিশই দিবে। পুলিশের এমন টানাহেঁচড়ায় চরম বেকায়দায় পড়েন সাজিদের পরিবার।

তবে শেষ পর্যন্ত মতিহার থানা থেকে সাজিদের মৃত্যু নিয়ে অনাপত্তি দেওয়ার বিষয়ে প্রস্তুতি চলছিল বলে জানা গেছে। এর আগে দুপুর ১২টার দিকে নগরীর পাঠানপাড়া এলাকায় পদ্মায় গোসল করতে নেমে সাজিদ পানিতে ডুবে মারা যান।

পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। জানা গেছে, সাজিদ জেলার পুঠিয়ার পিএন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়েছিল।

রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর) গোলাম রুহুল কুদ্দুস জানান, বিষটা আমি শুনেছি। প্রথমে সিমানা নিয়ে একটু সমস্যা হয়। স্থল থেকে বোয়ালিয়া কিন্তু নদী থেকে মতিহার থানার সিমানা নিয়ে সমস্যায় পড়ে তবে সমস্যার সমাধান করে এখন মোতিহার থানা থেকে সাজিদের মৃত্যু নিয়ে অনাপত্তিপত্র দেওয়ার বিষয়ে প্রস্তুতি চলছিল বলে জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

দেখা হয়েছে: 502
সর্বাধিক পঠিত
ফেইসবুকে আমরা

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

প্রকাশকঃ মোঃ জাহিদ হাসান
সম্পাদকঃ আরিফ আহম্মেদ
সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী
নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া
মোবাইলঃ ০১৯৭১-৭৬৪৪৯৭
বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
ই-মেইলঃ aporadhb[email protected]
অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
error: Content is protected !!