fbpx

|

শাহাজাদী বেগমের হত্যা মামলার আসামিরা ধরাছোঁয়ার বাহিরে প্রশাসন নিরব!

প্রকাশিতঃ ৯:৩১ অপরাহ্ন | মে ২৯, ২০২৩

শাহাজাদী বেগমের হত্যা মামলার আসামিরা ধরাছোঁয়ার বাহিরে প্রশাসন নিরব!

রংপুর প্রতিনিধিঃ রংপুরের মিঠাপুকুরে স্বামী,সন্তান এবং পুত্রবধূদের অত্যাচারে শাহজাদী বেগম (৫২) নামে এক নারীর হাসপাতালে রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় মৃতের ভাইদের আদালতের নির্দেশে হত্যা মামলা দায়ের হওয়ার পরেও অজ্ঞাত কারণে পুলিশ আসামি গ্রেফতার করেছেনা বলে অভিযোগ মৃতের ভাইদের। অন্যদিকে আসামি ভাগ্নেদের অব্যাহত হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন মামারা।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ এবং মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, গত-৯ মে (মঙ্গলবার) সকাল আনুমানিক ১০ঃ৩০ ঘটিকার সময় মিঠাপুকুর উপজেলার ০২ নং রানীপুকুর ইউনিয়নের আফজালপুর (সুরীপাড়ায়) ছেলে,স্বামী এবং পুত্রবধুদের সঙ্গে পারিবারিক কলহ এবং ছেলের বউয়ের পরকীয়া সম্পর্কের জেরে প্রথমে শাহাজাদী বেগমকে বেধড়ক মারপিট এবং পরে অবস্থা বেগতিক দেখে মুখে বিষ ঢেলে দিয়ে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নিয়ে গেলে তার রহস্য জনক মৃত্যু হয়।

শাহজাদী বেগমের মৃত্যুর পর তার স্বামী আমির হোসেন এবং ছেলে সহিদুল ইসলাম তড়িঘড়ি করে মিঠাপুকুর থানায় গিয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেন, যাহার ইউডি- মামলা নং ১৫/২০২৩ তাং ১০/০৫/২০২৩ ইং। মিঠাপুকুর থানা পুলিশ পোস্ট মর্টেম শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে।

এদিকে শাহজাদী বেগমের বড়ভাই ফুলবাবু মিয়া এবং ছোটভাই বেলাল মিয়া বোনের বিষপানে মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে বোনের বাড়িতে গেলে স্হানীয়রা জানান, তাদের বোনকে ঘটনার সময় প্রচুর মারডাং করা হয় এবং তাকে জীবন বাঁচাতে বাড়ির পাশে আমবাগানে দৌড়াতে দেখা যায়। কিন্তু তার স্বামী, সন্তান এবং পুত্রবধুরা তাকে অচেতন অবস্থায় সেখান থেকে ধরে বাড়িতে নিয়ে আসেন। পরে রহস্য জনকভাবে স্হানীয়দের জানানো হয়, শাহজাদী বেগম বিষপান করেছে এবং কিছুক্ষণ পরেই হাসপাতালে তার মৃত্যুর হয়েছে।

পূর্বে একাধিকবার শাহজাদী বেগমকে মারপিট এবং সন্তান,পুত্রবধুদের অত্যাচারে অভিমান করে ভাইদের বাড়িতে যাওয়া এবং সার্লিশ মিমাংসা করে তাকে বারবার বাড়িতে ফেরানোর বিষয়টি তাদের সন্দেহ হলে শাহজাদী বেগমের রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় তারা বাদী হয়ে মিঠাপুকুর থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা নেয়নি। ভুক্তভোগী ভাইদের দাবি, তারা দিনমজুর বলে পুলিশ তাদের কথা কর্নপাত করেনি। বরং শাহজাদী বেগমের মরদেহ দেখতে গেলে তার সন্তান এবং স্বামী ছোরা দিয়ে ধাওয়া করে। তাদের দাবি,লাশের শরীরে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন ছিলো।

মিঠাপুকুর থানা পুলিশ মামলা না নিলে মৃতের বড়ভাই ফুলবাবু মিয়া, ছয়জনকে আসামি করে আদালতের শরমাপন্ন হয়ে হত্যা মামলার আবেদন করলে আদালত ৩০২/৩৪ ধারায় মামলাটি আমলে নিয়ে ২৪ ঘন্টার মধ্যে মিঠাপুকুর থানাকে মামলাটি (এফ,আই,আর) হিসেবে গ্রহন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেয়। কিন্তু মিঠাপুকুর থানা পুলিশ অজ্ঞাত কারণে অপরাধীদের বাঁচাতে কালবিলম্ব করছে।

মৃত শাহজাদী বেগমের বড়ভাই মামলার বাদী ফুলবাবু মিয়া জানান, আসামিরা প্রকাশ্যে ঘুরছে। তাদের অব্যাহত হুমকিতে আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। আমরা গরীব মানুষ। ন্যায় বিচার দাবি করছি। এ বিষয়ে মিঠাপুকুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাফিজার রহমান জানান,পোস্ট মর্টেম রিপোর্ট না আসা অবধি আমরা আসামি ধরবোনা। আদালতে যা জবাব দেওয়া লাগে আমি তাই দেবো।

দেখা হয়েছে: 60
সর্বাধিক পঠিত
ফেইসবুকে আমরা

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

প্রকাশকঃ মোঃ জাহিদ হাসান
সম্পাদকঃ আরিফ আহম্মেদ
সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী
নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া
মোবাইলঃ ০১৯৭১-৭৬৪৪৯৭
বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
ই-মেইলঃ [email protected]
অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪