|

করোনা আপডেট
মোট আক্রান্ত

সুস্থ

মৃত্যু

  • জেলা সমূহের তথ্য
ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর | স্পন্সর - একতা হোস্ট
অনুকূল পরিবেশ সত্ত্বেও স্বপ্নের অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রকল্প নিয়ে গঙ্গাচড়াবাসী সন্ধিহান

প্রকাশিতঃ ৯:৩০ অপরাহ্ন | মে ২৫, ২০২০

অনুকূল পরিবেশ সত্ত্বেও স্বপ্নের অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রকল্প নিয়ে গঙ্গাচড়াবাসী সন্ধিহান

মোঃ সবুজ মিয়া,  রংপুরঃ বেকারত্বের অবসান ঘটাতে ও দেশের উন্নয়নকে ত্বরান্বিত করতে শিল্পপ্রতিষ্ঠান নির্মাণ করে অর্থনীতিকে শক্তিশালী করার বিকল্প নেই। এছাড়া দেশকে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে এগিয়ে নিতে প্রয়োজন কর্মসংস্থান।

এক্ষেত্রে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে প্রয়োজন কোন অনুকূল পরিবেশে অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলে শিল্পপ্রতিষ্ঠান তৈরী করা । এমনই একটি সম্ভাবনাময় অঞ্চল হতে পারে রংপুর জেলার গঙ্গাচড়া উপজেলার লক্ষীটারি ইউনিয়নের চরাঞ্চলের বিস্মৃত এলাকা। একটি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার জন্য যে ধরনের পরিবেশ ও দক্ষ জনবল থেকে শুরু করে প্রকল্প নির্মাণের এলাকার কাঠামো থাকা প্রয়োজন তার সকল প্রকার সুযোগ-সুবিধা আছে গঙ্গাচড়া উপজেলায়।

অবশ্য ইতিমধ্যেই অর্থনৈতিক অঞ্চল নির্মাণ প্রকল্পের জন্য কয়েকবার প্রাথমিক ভাবে জমি নির্বাচন ও স্হান পরিদর্শন করে গেছেন সরকারের উচ্চ পর্যায়ের প্রকল্পের প্রতিনিধিদল। রংপুরে অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করা এখন চলমান একটি প্রক্রিয়া কিন্তু নির্দিষ্ট করে গংগাচড়ায় অর্থনৈতিক অঞ্চল নির্মাণ প্রকল্পের কাজ বর্তমান করোনার পরিস্থিতির কারণে ছিটকে পরার আশংকা মনে করছেন গংগাচড়াবাসী।

প্রতিবছরে গঙ্গাচড়া উপজেলাবাসী যেভাবে ঈদ-উল ফিতর উৎসাহ-উদ্দীপনার মর্ধ্য দিয়ে উদযাপন করে থাকে কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে এবারেই প্রথম ভিন্ন ভাবে ঈদ উদযাপন করছে । করোনা’র প্রভাবে উপজেলার কর্মজীবী খেটে খাওয়া মানুষগুলো এখন কর্মের অভাবে কর্মহীন অবস্থায় অনেক কষ্টে জীবন যাপন করছে।

কর্মহীন হয়ে ঘরে বসে থেকে বর্তমান করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় সরকারের আরোপিত নিষেধাজ্ঞা মেনে সীমিত আকারে চলাচল করছে, মানছে সরকারের নির্দেশনা।

এমনকি দল বেধে ঈদগাহ্ মাঠে ঈদের নামাজ পড়ার ব্যাপারে যখন রয়েছে সরকারের নিষেধাজ্ঞা। তখন ঘরেই ঈদের নামাজ আদায় করেছেন তারা। ঘরেই পরিবারের সদস্যদের সাথে ঈদের আনন্দকে ভাগাভাগি করেছেন গোটা উপজেলাবাসী।

গঙ্গাচড়ায় অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠায় চলমান দাবিতে সকলকে পাশে থাকার আহ্বান ও ঈদের আনন্দ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মর্ধ্য দিয়ে সচেতনত থেকে এবং সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে উদযাপন করার আহ্বান জানিয়েছেন” গংগাচড়া উন্নয়ন পরিষদ গ্রুপ” পেজের এডমিন ও লক্ষীটারী ইউনিয়নের সদা নিরলস পরিশ্রমী, জনবান্ধব ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জনাব আব্দুল্লাহ আল হাদী।

তিনি গঙ্গাচড়ায় অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার দাবি চালিয়ে যাওয়ার লক্ষে তৈরী করেছেন “গঙ্গাচড়া উন্নয়ন পরিষদ” নামে একটি সংগঠন আর ঈদের পর করোনা পরিস্থিতির উন্নতি বুঝে সংগঠনকে আরও সুসংগঠিত ও গোছানোর কাজে হাত দিবেন বলে আশা ব্যক্ত করেন।

তিনি বলেন সবার আলাদা আলাদা দল আছে, ভিন্ন ভিন্ন মত আছে। একারণেই হয়তো আমাদের মধ্যে অনেক মত পার্থক্য আছে কিন্তু কারো সাথে উন্নয়নকাজে উপজেলাকে এগিয়ে নিতে দ্বন্দ নাই।

যারা সব সময় গংগাচড়ার উন্নয়ন নিয়ে কাজ করেছে, গংগাচড়ার কর্মহীন খেটে খাওয়া মানুষের কথা ভেবেছে এধরনের সমমনা ব্যক্তিদের নিয়ে গঠিত হয়েছে গংগাচড়া উন্নয়ন পরিষদ। যারা নিজ উপজেলার উন্নয়ন মূলক কাজের পক্ষে আছে তারাই গংগাচড়া উন্নয়ন পরিষদের সদস্য।

তিনি বলেন, বর্তমানে করোনা পরিস্থিতির জন্য বিশ্ববাসী আতংকিত, স্তম্ভিত।করোনা পরবর্তী দেশের অর্থনৈতিক চাকা সচল রাখতে ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন সোনার বাংলাদেশ কে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে দেখতে গঙ্গাচড়ায় অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা হতে পারে একটি যুগোপযোগী কার্যকরী পদক্ষেপ । বর্তমানে আমাদের দাবী আদায়ে বেগ পেতে হচ্ছে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসলে আমরা পুরো উপজেলাবাসীকে নিয়ে স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে হাঁটবো। ইনশাল্লাহ জয় হবে গঙ্গাচড়া উপজেলা বাসীর প্রতিষ্ঠিত হবে অর্থনৈতিক অঞ্চল।

বিশ্বেময় চরম অর্থনৈতিক বিপর্যয় চলছে এখন । বাংলাদেশের অবস্থাও অনুরূপ।এমতাবস্থায় আমরা চ্যালেঞ্জিং অবস্থায় রয়েছি।বর্তমান শেখ হাসিনা সরকার ইতিমধ্যে ঘোষিত অনেকগুলো অর্থনৈতিক অঞ্চলের কাজ শুরু করেছে।

এরমধ্যে সবচেয়ে সুবিধাজনক অবস্থানে ছিল আমাদের গংগাচড়ার লক্ষীটারী ইউনিয়নের অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার জায়গাটি, তিনি তার কারন উল্লেখ করে বলেন, এখানে শিল্পাঞ্চল করার পর্যাপ্ত জায়গা আছে। নদী বন্দর আছে। ট্রেন লাইন স্থাপন করে কাকিনা স্টেশনে সংযোগের সুবিধা আছে, ভারতীয় বর্ডার ও সৈয়দপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরটিও কাছাকাছি।

কিন্তু ইতিমধ্যে বিভিন্ন কারণে অনুকুলীয় পরিবেশ থাকার সত্ত্বেও দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমরা আমাদের স্বপ্নের অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার প্রকল্প থেকে ছিটকে পড়ে গেছি।

যেখানে অন্যান্য জায়গায় কাজ প্রায় শুরু হয়ে গেছে। করোনা পরিস্থিতির জন্য হয়তো আমরা এক জায়গায় সমবেত হতে পারবো না।

তিনি বলেন, গঙ্গাচড়া উন্নয়ন পরিষদের সম্মানিত এডমিন গনের সাথে আলোচনা করে দলমত নির্বিশেষে অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার জন্য প্রয়োজনে আইনি প্রক্রিয়ায় গিয়ে কাজ করারও ইচ্ছা আছে। ব্যক্তিগতভাবে আমার সাথে অনেকের মতের অমিল থাকতে পারে। আমি গংগাচড়ার উন্নয়নের জন্য সমস্ত অমিল ভুলে গিয়ে সবাইকে সাথে নিয়ে গংগাচড়ার লক্ষীটারী ইউনিয়নে অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার কাজটি করতে চাই।

আশা করি সবাই আমার পাশে থাকবে। উপজেলাবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে ঈদ পরবর্তী এ আন্দোলনে আবারো আহ্বান জানিয়ে উপজেলাবাসীর সুস্থতা কামনা করেন।

দেখা হয়েছে: 684
সর্বাধিক পঠিত
ফেইসবুকে আমরা

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।
সম্পাদকঃ আরিফ আহমেদ
উপদেষ্টা সম্পাদকঃ আফজাল হোসেন হিমেল
সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী
নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া
বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
ই-মেইলঃ aporadhbartamofosal@gmail.com
অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪