fbpx

|

হাড় কাঁপানো শীতকে পিছনে ফেলে চরম ব্যস্ত বোরো চাষে কৃষি-শ্রমিকরা

প্রকাশিতঃ ৮:২৯ অপরাহ্ন | জানুয়ারী ১২, ২০১৮

সারোয়ার হোসেন,তানোরঃ

শীতের শুরুতে হাড় কাঁপানো শীত ও কুয়াশা কোন কিছুই তাদেরকে আটকিয়ে রাখতে পারেনি বাড়ীতে। পোষের হাড় কাপানো শীতকে অতিক্রম করে বোরো চাষের জন্য চরম ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন বরেন্দ্র অঞ্চল নামে পরিচিত রাজশাহী জেলার তানোর উপজেলার কৃষি শ্রমিকরা।

তাদের চোখে নেই ঘুম, শীতকে গরম মনে করে নেমে পড়েছে বোরো চাষের জন্য। উপজেলার বিভিন্ন মাঠে গিয়ে দেখা যায় মাঠের পর মাঠ কুয়াশার ও কনকনে হাড় কাপানো শীতের মধ্যে কৃষি শ্রমিকরা জমি রোপন করছেন। কারণ সময় চলে গেলে মিলবে না সঠিক সময়ে ধান উত্তোলন।

দেখা গেছে, তানোর বিলকুমারী বিলে আমশো, গুবির পাড়া,ধানতৈড়,চাপড়া মাঠ জুড়ে ও উপজেলার কলমা, দরগাডাঙ্গা কামারগাঁ ইউপি’র হাতিশাইল, পাড়িশো, ও মাদারীপুর মাঠ সহ উপজেলার বিভিন্ন মাঠে চলছে ব্যাপক হারে বোরো চাষ। অনেকে আমন ধান উত্তোলন করে চাষ করেছেন আলু।

যারা আলু চাষ করেন নি তারা বোরো চাষের জন্য আগাম থেকেই চরম ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। মাঠে কথা হয় চাষি আনসার আলীর সাথে। তিনি জানান, সে এবার ৫ বিঘা জমিতে বোরো চাষ করবে। বিঘা প্রতি ৬ জন করে কৃষি শ্রমিক লাগছে। সে হিসাবে ৫ বিঘা জমিতে ৩০ জন শ্রমিকের প্রয়োজন। একজন শ্রমিকের মূল্য দিতে হচ্ছে ৩শ’ টাকা। ৩০ জন শ্রমিকের মজুরী বাবদ দিতে হচ্ছে ৯ হাজার টাকা।

চাষিরা জানায়, বিঘা প্রতি পটাশ ১৫ সের, ফলন ভালো পেতে এক বিঘায় ১০০০ টাকায় ব্রজেন, থিয়োভিট, ম্যাগা, ম্যাজমা দিচ্ছেন এবং প্রতি বিঘায় ১০০০ টাকার বিষ ও সেচ খরচ হারে বিঘা প্রতি ১১০০, জমি চাষ খরচ বিঘা প্রতি ১০০০ টাকা করে লাগছে। কথা হয় জমি রোপন করতে আশা শ্রমিক সাদ্দামের সাথে। তিনি জানান, সূর্য উঠার আগেই কনকনে শীতে বীজতলার চারা তোলার জন্যে নেমে পড়তে হচ্ছে পানিতে। মন কখনো চাইনা এত ঠান্ডায় ভোর বেলায় পানিতে নামতে। কিন্তু কোন উপায় নেই। পেটে ভাত দিতে হবে, পরণে কাপড় দিতে হবে, পরিচালনা করতে হবে ছেলে মেয়েদের নিয়ে সংসার। একদিন কাজ না করলে পেটে জুটবে না ভাত। শুধু সাদ্দাম নয়, এমন কথা জানায় বাবু, সালাউদ্দিন সহ শত শত শ্রমিক।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, এবার উপজেলা জুড়ে বোরো চাষের জমির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১৪হাজার৫০০ হেক্টর। এ পর্যন্ত প্রায় ৫৫ হেক্টর জমিতে চারা রোপন করা হয়েছে। কৃষি কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম জানান, আলু চাষাবাদ করেছেন যারা তারা আলু উত্তোলনের পর বোরো চাষ করবেন। যারা আমন ধান কেটে আলু চাষ করেন নি সেসব জমির বেশির ভাগ কৃষকরাই বোরো চারা রোপন করে ফেলেছেন। আশা করছি লক্ষ্যমাত্রা পার হয়ে যাবে।

দেখা হয়েছে: 505
সর্বাধিক পঠিত
ফেইসবুকে আমরা

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

প্রকাশকঃ মোঃ জাহিদ হাসান
সম্পাদকঃ আরিফ আহম্মেদ
সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী
নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া
মোবাইলঃ ০১৯৭১-৭৬৪৪৯৭
বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
ই-মেইলঃ [email protected]
অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
error: Content is protected !!