fbpx

|

তানোরে সিমানা পিলারকে কেন্দ্র করে পিতা-পুত্র হাসপাতালে

প্রকাশিতঃ ১:০১ অপরাহ্ন | জানুয়ারী ২২, ২০১৮

তানোর প্রতিনিধিঃ

তানোরে সিমানা পিলারকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের মারপিটে মাথা ফেটে গুরুতর আহত পিতা-পুত্রকে তানোর উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে তানোর পৌর এলাকার গুবির পাড়া গ্রামে। এঘটনায় ২জনকে আসামী করে তানোর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শি সুত্রে জানা গেছে, (আজ) গতকাল রোববার দুপুরে বিদ্যুৎ বিভাগের লোকজন বিদ্যুতের নতুন সংযোগ দেয়ার জন্য গুবিরপাড়া গ্রামের মৃত রুস্তোম আলীর পুত্র সাংবাদিক সারোয়ার হোসেন ও সিন্দুকাই গ্রামের সিদ্দিকের পুত্র গুবির পাড়ায় বসবাসরত ইয়াদ আলীর সিমানা পিলারের মাঝখানে বিদ্যুতের নতুন পোল স্থাপন করতে চাইলে ইয়াদ আলী পোল স্থাপনে বাধা দিয়ে বিদ্যুৎ বিভাগের লোকজনের উপর চড়াও হয়।

এসময় সাংবাদিক সারোয়ার হোসেন গ্রামবাসীর সার্থের কথা ভেবে বিদ্যুতের পোলটি তার জায়গায় স্থাপনের অনুমতি দিলে বিদ্যুত বিভাগের লোকজন সারোয়ারের জায়গাতে পোল স্থাপন করে চলে আসনে। পরে সকলের অগচরে ইয়াদ আলী ওই সিমানা পিলারটি তুলে সারোয়ারের জায়গার উপর পুতে।

এসময় সারোয়ারের চাচা গুবির পাড়া গ্রামের মুত ছাবের আলীর পুত্র শফিকুল ইসলাম শফি পুর্বের স্থান থেকে সিমানা পিলারটি তুলে নতুন ভাবে সারোয়ারের জায়গার উপর সিমানা পিলার পুতার কারন জানতে চাইলে ইয়াদ আলী ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। এনিয়ে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ইয়াদ আলী ও তার পুত্র সাদিকুল ইসলাম রিপন ক্ষিপ্ত হয়ে বাশেঁর লাঠি ও লোহার রড় দিয়ে শফিকুল ইসলাম শফিকে অতর্কিত হামলা করে এলোপাথাড়ী ভাবে মারপিট শুরু করে।

এসময় শফিকুলের পুত্র গোলাম রাব্বানী তার পিতাকে বাচাতে এগিয়ে আসলে তাকেও লোহার রড় ও বাশেঁর লাঠি দিয়ে এলোপাথাড়ী ভাবে মারপিট করে এক পর্যায়ে শফিকুল ও তার পুত্র গোলাম রাব্বানীর মাথা ফেটে গুরুতর ও রক্তাক্ত জখম হয়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেললে ইয়াদ আলী ও তার পুত্র সাদিকুল পালিয়ে যায়।

পরে গ্রামবাসী ও শফিকুলের পরিবারের লোকজন খবর পেয়ে শফিকুল ও তার পুত্র গোলাম রাব্বানীকে গুরুতর আহত ও অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে তানোর উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করেন। এঘটনায় ইয়াদ আলী ও তার পুত্র সাদিকুলকে আসামী করে শফিকুল বাদি হয়ে তার ভাতিজা সাংবাদিক সারোয়ারের মাধ্যমে তানোর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

এব্যাপারে তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেজাউল ইসলাম বলেন, অভিযোগটি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য এসআই সাইফুল ইসলামকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

এব্যাপারে অভিযোগের তদন্তকারী অফিসার তানোর থানার এসআই সাইফুল ইসলাম অপরাধ বার্তাকে বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পর ঘটনাস্থলে গিয়ে আসামীদের কাউকেই পাওয়া যায়নি, হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসকদের সাথে কথা বলে জানা গেছে শফিকুলের মাথায় লোহার রড়ের আঘাতে তার মাথা ফেটে গেছে ৫টি সেলাই দেয়া হয়েছে তার অবস্থা খুবই গুরুতর, এবিষয়ে আইগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

দেখা হয়েছে: 360
সর্বাধিক পঠিত
ফেইসবুকে আমরা

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

প্রকাশকঃ মোঃ জাহিদ হাসান
সম্পাদকঃ আরিফ আহম্মেদ
সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী
নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া
মোবাইলঃ ০১৯৭১-৭৬৪৪৯৭
বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
ই-মেইলঃ [email protected]
অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
error: Content is protected !!