fbpx

|

রাজশাহীতে তাপমাত্রা বাড়লেও কমেনি শীতের দাপট

প্রকাশিতঃ ২:৪২ পূর্বাহ্ন | জানুয়ারী ১০, ২০১৮

নাজিম হাসান,রাজশাহী প্রতিনিধি:
উত্তরের হাওয়া প্রবাহ অব্যাহত থাকায় পৌষের শেষে শীতের দাপটে কাতর হয়ে পড়েছেন রাজশাহী জেলার বিভিন্ন উপজেলার শ্রমজীবী মানুষরা। ঘন কুয়াশার চাদরে ঢাকা পড়েছে এ অঞ্চলের পথ-ঘাট। এতে করে উত্তরের হিমেল হাওয়া ঘন কুয়াশা আর কনকনে ঠাণ্ডায় শৈত্যপ্রবাহে কাঁপছে।

এর ফলে শীতের তীব্রতা বেড়েছে। বেলা বাড়ার পরেও অনেককে খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণ করতে দেখাগেছে। এর ফলে শিশু ও বৃদ্ধসহ ছিন্নমূল মানুষরা ব্যাপক ভোগান্তির মধ্যে পড়েছেন। বিশেষ করে শীতে সবচেয়ে কাহিল হয়ে পড়েন খেটে খাওয়া মানুষগুলো। এবং কষ্টে দিন যাপন করছে নিন্ম আয়ের শ্রমজীবী মানুষরা।

রাজশাহীতে গতকাল মঙ্গলবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস বলে আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আশরাফুল আলম জানান। এ অঞ্চলের তাপমাত্রা কিছুটা বাড়লেও কমেনি শীতের দাপট। এ সময় বাতাসের আর্দ্রতা ছিলো ১০০ শতাংশ। গত সোমবার ছিল ৫ দশমিক ৩ ডিগ্রি, রোববার ছিল একই, শনিবার ছিল ৮ দশমিক ৩ ডিগ্রি।

গত কয়েকদিন ধরে অব্যাহতভাবে তাপমাত্রার পরিমাণ কমলেও গতকাল মঙ্গলবার কিছুটা বেড়েছে। প্রচণ্ড শীতে রাজশাহীর মানুষের জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে বুধবার (২০ ডিসেম্বর) ভোর থেকে ঘন কুয়াশার কারণে আশপাশের কিছুই দেখা যাছিলনা না। তারপর বেড়েছে শীতের তীব্রতা। আর এই শীতের তীব্রতা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পুরানো কাপড়ের দোকানগুলোতে মানুষ হুমরি খেয়ে পড়ছে। দামও বেশি নিচ্ছে দোকানদাররা।

কয়েক দিনের তীব্র শীতে সবচেয়ে বেশি প্রভাবিত হচ্ছে নিম্নআয়ের মানুষ। শহরের অভিজাত বিপণী বিতানের তুলনায় শীতের পুরানো গরম কাপড়ের দোকানগুলোতে ভিড় বেশি। সকাল থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত এসব দোকানগুলোতে ক্রেতাদের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। নিম্নআয়ের মানুষ ২০ টাকা থেকে ৫০ টাকায় গরম কাপড় পেয়ে খুশি।

প্রতিবছর শীতার্তদের জন্য বিভিন্ন সংস্থা বিনামূল্যে শীত বস্ত্র বিতরণ করলেও এ বছর এখনো কোনো পদক্ষেপ দেখা যায়নি। শীতের কারণে স্বাভাবিক কাজকর্ম ব্যাহত হয়েছে। মানুষের পাশাপাশি শীতের কবলে পড়েছে গবাদিপশু। বোরো বীজতলা ও রবিশস্যতে এই ঘন কুয়াশায় ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

দেখা হয়েছে: 362
সর্বাধিক পঠিত
ফেইসবুকে আমরা

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

প্রকাশকঃ মোঃ জাহিদ হাসান
সম্পাদকঃ আরিফ আহম্মেদ
সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী
নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া
মোবাইলঃ ০১৯৭১-৭৬৪৪৯৭
বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
ই-মেইলঃ [email protected]
অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
error: Content is protected !!