fbpx

|

শরীয়তপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সরকারী বই টাকায় বিক্রির অভিযোগ

প্রকাশিতঃ ৯:৩৬ অপরাহ্ন | জানুয়ারী ০৯, ২০১৮

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ

জেলার নড়িয়া উপজেলার ৮০ নং ডিঙ্গামানিক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে বই দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

ঘটনাস্থল ডিঙ্গামানিক ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের ৮০ নং ডিঙ্গামানিক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে বই দেয়ার কথা বলে বই দেয়ার আগে ২৫০ টাকা করে নেওয়ার কথা জানা যায়, উক্ত বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সেতারা বেগমের বিরুদ্ধে এই অভিযোগের আঙ্গুল তুলেছে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকগণ।

এ ঘটনায় বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর এক শিক্ষার্থীর বাবা গোবিন্দ মজুমদার জানান,এই নতুন বছরের জানুয়ারীর প্রথম দিনে সরকারী ঘোষনা অনুযায়ী বিনা মূল্যে বই উৎসবে আমি ৮০ নং ডিঙ্গা মানিক প্রাথমিক বিদ্যালয়েবই আনতে গেলে তারা আমার থেকে ২৫০ টাকা চায় যেটা বই নেয়ার আগেই দিতে হবে।

এরকমই আরেকজন উক্ত বিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক বাবু মিয়া অভিযোগ করে বলেন, আমি বেকারির মাল নিয়ে সকালে বিক্রির জন্য বের হলে আমাকে টাকার জন্য ফোন দেয়,আমি অনেক কষ্ট করে টাকা পাঠালে সে টাকা দিয়ে আমার বাচ্চা বই আনে।

এধরনের আরো কয়েকজন অভিভাবক বলেন আমাদের কাছ থেকে এভাবে আরো অনেক টাকা নিয়েছে। ডিঙ্গামানিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। অভিভাবক ও এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন, আমাদের ভিতর অনেকেই গরীব আমরা এতো টাকা কোথা থেকে দিবো।কিন্তু টাকা বাধ্যতামুলক দিতে হবে বলে কষ্ট করে জোগাড় করে দিয়ে বই কিনে বিদ্যালয় থেকে।

বিনা মূল্যের সরকারী বই দিয়ে টাকা নেওয়ার বিষয়ে ডিঙ্গামানিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোসাম্মৎ সেতারা বেগম টাকা নেওয়ার কথা অস্বীকার করে বলেন এ ধরনের কোনো অভিযোগ পাইনি পেলে ব্যাবস্থা নেবো।

উক্ত বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ ইলিয়াছ হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, রক্ত পরিক্ষা,আইডি কার্ড, ডাইরী এবং খেলার জন্য এই টাকা নেওয়া হয়।

এব্যাপারে স্কুল কমিটির সভাপতি মোঃ সেকান্দার হাওলাদারের সাথে কথা হলে তিনি বলেন,এ ধরনের কোন অভিযোগ আমার কাছে আসেনি ঘটনা সত্যি হলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

৮০নং ডিঙ্গামানিক প্রাথমিক বিদ্যালয় সহ জেলার অন্যন্য বিদ্যালয়ে সরকারী বিনা মূল্যের বই টাকায় বিক্রির অভিযোগের ব্যাপারে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্ম-কর্তা আবুল কালাম আজাদ এর সাথে কথা হলে তিনি অপরাধ বার্তাকে বলেন, আইডি কার্ড, রক্ত পরিক্ষা,ডাইরী এবং খেলা-ধুলার জন্য কোনো টাকা নেয়া সরকারি কোন অনুমতি নেই। এ ব্যাপারে আমার কাছে কোন অভিযোগ আসেনি ঘটনা সত্যি হলে যে কোনো বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বিরুদ্ধে আমরা কঠোর পদক্ষেপ গ্রহন করবো।

দেখা হয়েছে: 496
সর্বাধিক পঠিত
ফেইসবুকে আমরা

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

প্রকাশকঃ মোঃ জাহিদ হাসান
সম্পাদকঃ আরিফ আহম্মেদ
সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী
নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া
মোবাইলঃ ০১৯৭১-৭৬৪৪৯৭
বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
ই-মেইলঃ [email protected]
অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
error: Content is protected !!