fbpx

|

নেত্রকোনায় নির্মিত ব্রীজের কাজ অসমাপ্ত: জনগণের দুর্ভোগ চরমে

প্রকাশিতঃ ৮:৩০ অপরাহ্ন | ডিসেম্বর ২৪, ২০১৭

অনলাইন বার্তাঃ

দশ গ্রামের মানুষের প্রাণের দাবি নেত্রকোনার মদন উপজেলার কুড়াই খালের উপর ব্রিজ নির্মাণ হলেও এ্যাপ্রোচে মাটি না থাকায় এর উপর দিয়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। ফলে চলাচলে দুর্ভোগ পোহাচ্ছে জন সাধারণ।

প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস সূত্রে জানা যায়, ২০১২-১৩ অর্থ বছরে দুযোর্গ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের সেতু কালভার্ট নির্মাণ প্রকল্পের কর্মসূচির আওতায় উপজেলার তিয়শ্রী ইউনিয়নের বাড়েউড়া-দৌলতপুর রাস্তায় ২৬ লাখ ২ হাজার ৩৬ টাকা ব্যয়ে এ ব্রীজটি নির্মাণ করা হয়।

এ্যাপ্রোচের মাটি না থাকায় ব্রীজটি অকেজো হয়ে পড়ায় যাতায়াতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে এলাকাবাসীর। হেমন্তকালে বেড়িবাধঁ দিয়ে যাতায়াত করতে পারলেও বর্ষাকালে জনগনের দূর্ভোগের অন্ত নেই। দৌলতপুর-তিয়শ্রী সংযোগ সড়কটি এই এলাকার অর্ধ লাখ লোকের যোগাযোগের একমাত্র সহজ মাধ্যম। উপজেলা সদরসহ পার্শবর্তী কেন্দুয়া উপজেলা ও কিশোরগঞ্জ জেলার তাড়াইলের সাথে এ সড়ক দিয়ে যোগাযোগে ১৫ কিলোমিটার দূরত্ব কমে। ফলে এ পথে প্রতিদিন মোটরসাইকেল, রিকশা, অটোরিকশা দিয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ অসংখ্য লোকজন যাতায়ত করতে পারত।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ঠিকাদার ব্রীজ নির্মাণ করে দু’পাশের এ্যাপ্রোচের মাটি ভরাট না করে বিল উত্তোলন করে নিয়েছে।

এ ব্যাপারে তিয়শ্রী ইউপি চেয়াম্যান ফখর উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, এই ব্রীজটি মূলত আমার দায়িত্বভার গ্রহন করার আগেই নির্মাণ হয়েছে। তবে জরুরি ভিত্তিতে এ্যাপ্রোচে মাটি দেয়ার ব্যবস্থা করবো।

উপজেলা ভারপ্রাপ্ত প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ আরিফুর রহমান জানান, চল্লিশ দিনের কর্মসূচি অথবা যে কোন একটি প্রকল্পের মাধ্যমে এ্যাপ্রোচে মাটি ফেলার ব্যবস্থা করবো।

দেখা হয়েছে: 438
সর্বাধিক পঠিত
ফেইসবুকে আমরা

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

প্রকাশকঃ মোঃ জাহিদ হাসান
সম্পাদকঃ আরিফ আহম্মেদ
সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী
নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া
মোবাইলঃ ০১৯৭১-৭৬৪৪৯৭
বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
ই-মেইলঃ [email protected]
অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
error: Content is protected !!