fbpx

|

আদিবাসীদের উচ্ছেদের হুমকি,পুলিশের ভূমিকা রহস্যময়

প্রকাশিতঃ ৪:০০ পূর্বাহ্ন | জানুয়ারী ১৮, ২০১৮

নাজিম হাসান রাজশাহী প্রতিনিধি:
রাজশাহীর পবা উপজেলাধীন নওহাটা মহানন্দাখাল আদিবাসী পল্লীর ৪০টি আদিবাসী পরিবার এখন উচ্ছেদ আতঙ্কে রয়েছেন। স্থানীয় প্রভাবশালীরা তাদেরকে ঘরবাড়ি ছেড়ে যেতে প্রতিনিয়ত হুমকি দিচ্ছে।

গত ২৪ ডিসেম্বর জাতীয় ও স্থানীয় গণমাধ্যমে বিষয়টি প্রকাশে আসলে কিছুদিন ওই প্রভাবশালী মহলটি চুপ থাকলেও আবারো স্থানীয় একজন বিএনপি সমর্থক নওহাটা পৌরসভার ০১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল কুদ্দুসকে দিয়ে ধারাবাহিকভাবে হুমকি-ধামকি দিয়ে যাচ্ছে।

এ বিষয়ে গত মঙ্গলবার রাতে পবা থানায় নিরাপত্তা চেয়ে আদিবাসী পরিবারগুলো সাধারণ ডায়েরী করতে গেলেও তা গ্রহণ করা হয়নি বলে অভিযোগ ওঠেছে।

বুধবার বিকেলে ভুক্তভোগীরা রাজশাহী প্রেসক্লাবে এসে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন। তবে পবা থানার ওসি অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তারা ডায়েরী করার জন্য আসলে তা গ্রহণ করার জন্য বলা হয়। কিন্তু তারা সহজ-সরল মানুষ হওয়ায় তা বুঝতে পারেন নি। এ সময় তিনি কাজে থানার বাইরে চলে আসেন। তিনি পরে শুনেছেন আদিবসী পরিবারগুলো জিডি না করেই চলে গেছেন। তারা থানায় এসে যে কোন সময় জিডি করতে পারবেন।

মহানন্দা খালের আদিবাসীরা অভিযোগ করে বলেন, তারা প্রায় ৪০ বছর ধরে সেখানে বসবাস করছেন। তএলাকাটি খাস জমি। তবে তাদেরকে সেখানে বসতি গড়তে সহযোগিতা করেছিলেন এলাকার প্রভাবশালী ভূস্বামী গিয়াশ উদ্দিন। অত্যন্ত জঙ্গলপূর্ণ এলাকা ছিলো মহানন্দা খাল। আদিবাসীরা দিনরাত পরিশ্রম করে সেই খালটি বসবাস উপযোগী করে গড়ে তুলেছেন তিলে তিলে।

আদিবাসীদের অভিযোগ, হঠাৎ করেই গিয়াশ উদ্দিনের ছেলে জোবায়ের ওই এলাকাটি ছেড়ে অন্যত্র চলে যাওয়ার জন্য আদিবাসীদের হুমকি প্রদান করেছেন। পুলিশ প্রশাসনও সহযোগিতা করছে জোবায়েরকে। পরে গণমাধ্যমে বিষয়টি আসলে তারা কিছুদিন নিরব ছিলো। এবার স্থানীয় বিএনপি সমর্থক ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল কুদ্দুসকে হাত করে হুমকি-ধামকি অত্যাচার চালিয়ে আসছে। প্রতিদিন রাতে মদ্যপ অবস্থায় অশ্রাব্য ভাষা গালিগালাজ করেন ওই কাউন্সিলর।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- সীমারানী ওঁরাও, আরতি ওঁরাও, লক্ষ্মী ওঁরাও, ফুলিত ওঁরাও, ধীরেন ওঁরাও, সীমন্ত সর্দার, রান্টু ওঁরাও, সাম্যবাদী দলের সাজ্জাদ হোসেন প্রমুখ।

আদিবাসী সংগ্রাম পরিষদের উপদেষ্টা মাসুদ রানা উচ্ছেদ চেষ্টার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, তাদের উচ্ছেদ করা হলে তারা পথে বসবেন। মাথা গোঁজার স্থান তাদের থাকবে না। দীর্ঘ চার দশকের বেশি সময় তারা সেখানে বসবাস করছেন। তাদেরকে সেখান থেকে উচ্ছেদ সুস্পষ্ট মানবাধিকার লঙ্ঘন।

দেখা হয়েছে: 322
সর্বাধিক পঠিত
ফেইসবুকে আমরা

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

প্রকাশকঃ মোঃ জাহিদ হাসান
সম্পাদকঃ আরিফ আহম্মেদ
সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী
নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া
মোবাইলঃ ০১৯৭১-৭৬৪৪৯৭
বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
ই-মেইলঃ [email protected]
অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
error: Content is protected !!