fbpx

|

ময়মনসিংহে গৃহবধূকে থানায় আটক রেখে নির্যাতন, ওসির বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিতঃ ৯:২৭ অপরাহ্ন | ডিসেম্বর ২৮, ২০১৭

মোঃ কামাল, ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট থানায় এক গৃহবধূকে তিন দিন থানায় আটক রেখে নির্যাতনের অভিযোগে ওসিসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করেছেন ওই গৃহবধু । বৃহস্পতিবার (২৮ ডিসেম্বর ) দুপুরে হালুয়াঘাট থানার ওসি মোঃ কামরুল ইসলাম মিয়া মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা যায়, গত বুধবার (২৭ ডিসেম্বর ) বিকেলে ময়মনসিংহের ৫ নম্বর আমলী আদালতে ওই নারী বাদি হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। পরে আদালতের বিচারক হাফিজ আল আসাদ মামলাটি আমলে নিয়ে ১৫ দিনের মধ্যে ঘটনার তদন্ত করে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য জেলা পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দিয়েছেন বলে বাদীর আইনজীবী নজরুল ইসলাম সরদার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এবিষয়ে ময়মনসিংহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নূরে আলম বলেন, আদালতের নির্দেশনার বিষয়টি শুনেছি। আমরা এখনও নথি হাতে পাইনি। নথি পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান নুরে আলম।

মামলার বিবরন থেকে জানা যায়, গত ১১ আগস্ট দুপুরে উপজেলার ধুরাইল বাজার এলাকা থেকে ওই গৃহবধূকে ধরে নিয়ে যায় হালুয়াঘাট থানার ওসি কামরুল ইসলাম মিয়া।

ওই গৃহবধুকে থানায় আনার পর তার কাছে টাকা দাবি করেন। সেই টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে ধুরাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ওয়ারেস উদ্দিন সুমন এবং ওসি ওই গৃহবধূকে নির্যাতন ও উত্ত্যক্ত করেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

পরে ১৩ আগস্ট সন্ধ্যায় ওই গৃহবধূকে গরু চুরির মামলা দিয়ে আদালতের নির্দেদে জেলহাজতে পাঠানো হয়। পরদিন জেলহাজতে ওই নারী অচেতন হয়ে পড়লে কারাগার হাসপাতালের মাধ্যমে তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সুস্থ হয়ে গত ৪ ডিসেম্বর জামিনে মুক্তি পান তিনি।

এদিকে গৃহবধুর আইনজীবী নজরুল বলেন, গত ২১ ডিসেম্বর ওসি কামরুল ইসলাম মিয়া ও চেয়ারম্যান ওয়ারেস উদ্দিন সুমনসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ দায়ের করেন। পরে বুধবার (২৭ ডিসেম্বর ) বিকেলে বিচারক হাফিজ আল আসাদ অভিযোগটি আমলে নিয়ে প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

অন্যদিকে ধুরাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ওয়ারেস উদ্দিন সুমন বলেন, রাজনৈতিক প্রতিহিংসা থেকে একটি পক্ষ আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। গৃহবধূ নির্যাতনের বিষয়টি আমার জানা নেই।

এবিষয়ে হালুয়াঘাট থানার ওসি কামরুল ইসলাম মিয়া নির্যাতনের বিষয়টি অস্বীকার করে বলন, ওই গৃহবধুর বাড়ি থেকে ৫টি চুরাই গরু উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার হওয়া গরু চুরির মামলায় ওই গৃহবধূকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছিল। তাকে থানায় রেখে কোন নির্যাতন করা হয়নি বলেও জানান ওসি।

দেখা হয়েছে: 567
সর্বাধিক পঠিত
ফেইসবুকে আমরা

অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।

প্রকাশকঃ মোঃ জাহিদ হাসান
সম্পাদকঃ আরিফ আহম্মেদ
সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী
নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া
মোবাইলঃ ০১৯৭১-৭৬৪৪৯৭
বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
ই-মেইলঃ [email protected]
অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
error: Content is protected !!